যোগাযোগ ব্যবস্থার যুগান্তকারী উন্নয়নে আওয়ামী লীগ

139

Published on ডিসেম্বর 21, 2013
  • Details Image

প্রত্যাশিত আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের অনুকূল টেকসই, নিরাপদ ও মানসম্মত সড়ক অবকাঠামো এবং সমন্বিত আধুনিক গণ-পরিবহন ব্যবস্থা গড়ে তোলার লক্ষ্যে সড়ক বিভাগ নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। সড়ক বিভাগের আওতাধীন সড়ক নেটওয়ার্কের অবস্থা বর্তমানে যে কোন সময়ের চেয়ে উন্নত। এতে সড়ক বিভাগের উপর জনগণের আস্থা বৃদ্ধি পেয়েছে। বিদ্যমান সড়ক নেটওয়ার্ক আরও উন্নত এবং রুপকল্প-২০২১ এর সাথে সামাঞ্জস্যপূর্ণ করার নিমিত্ত সড়ক নেটওয়ার্কের নিয়মিত সংরক্ষণ ও মেরামত এবং সংরক্ষণ ও উন্নয়ন কাজ অব্যাহত রাখা হয়েছে।

সড়ক বিভাগ এবং সেতু বিভাগ নিয়ে যোগাযোগ মন্ত্রনালয় গঠিত। সড়ক বিভাগের আওতাধীন অধিদপ্তর/ কর্তৃপক্ষ/সংস্থাসমূহ হচ্ছেঃ
১) সড়ক ও জনপথ (সওজ) অধিদপ্তর
২) বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)
৩) বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্পোরেশন (বিআরটিসি)
৪) ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষ (ডিটিসিএ)

সড়ক ও জনপথ (সওজ) অধিদপ্তর- এর প্রধান কাজ

১) ঢাকা মহানগরীর পশ্চিমাংশের সাথে বুড়িগঙ্গা তীরবর্তী কেরানীগঞ্জের সাথে যাতায়াত সহজ করার জন্য বুদ্ধিজীবী সেতু (৩য় বুড়িগঙ্গা সেতু)
২) টঙ্গী রেলওয়ে জংশন ও টঙ্গী শিল্প এলাকায় রেল ক্রসিং স্থলে সৃষ্ট যানজট নিরসনের লক্ষ্যে টঙ্গি-কালিগঞ্জ-ঘোড়াশাল-পাঁচদোনা সড়কের ১ম কিলোমিটারে শহীদ আহসানউল্লাহ মাস্টার উড়াল সেতু নির্মাণ
৩) বৃহত্তর সিলেট, কিশোরগঞ্জ, ব্রাহ্মণবাড়িয়াগামী যানবাহনের ঢাকা প্রবেশ ও নির্গমন সহজ করার লক্ষ্যে শীতলক্ষ্যা নদীর উপর সুলতানা কামাল সেতু (২য় শীতলক্ষ্যা সেতু) নির্মাণ
৪) দক্ষিণ চট্টগ্রাম, বান্দরবান পার্বত্য জেলা ও পর্যটন জেলা কক্সবাজারের সাথে যাতায়াত সহজ ও সুগম করার লক্ষ্যে কর্ণফুলী নদীর উপরে হযরত শাহ আমানত (রহঃ) সেতু নির্মাণ
৫) দক্ষিণ অঞ্চলের সাথে ঢাকার যোগাযোগ সহজ ও সময় সাশ্রয়ী করার লক্ষ্যে ঢাকা-বরিশাল-পটুয়াখালি মহাসড়কে কীর্তনখোলা নদীর উপরে শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত (দপদপিয়া) সেতু নির্মাণ
৬) ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সাথে চট্টগ্রাম বন্দরের সংযোগ স্থাপনের লক্ষ্যে ১৪২০ মিটার দীর্ঘ চট্টগ্রাম বন্দর সংযোগ উড়াল সেতু নির্মাণ
৭) কুড়িগ্রাম ও লালমনিরহাট জেলার সাথে সারাদেশের সুষ্ঠু ও সহজ যোগাযোগ স্থাপনের নিমিত্ত সংপুর-কুড়িগ্রাম জাতীয় মহাসড়কের ২১তম কিলোমিটারে তিস্তা নদীর উপরে ৭৫০মিটার দীর্ঘ তিস্তা সেতু নির্মাণ

৮) সারাদেশের সঙ্গে পার্বত্য জেলা বান্দরবানের রুমা ও থানচি উপজেলার সরাসরি যোগাযোগ ব্যবস্থা স্থাপনের নিমিত্ত সাঙ্গু নদীর উপর ২১৭.১৫ মিটার দীর্ঘ রুমা সেতু ও ২১৬.৪৪ মিটার দীর্ঘ থানচি সেতু নির্মাণ
৯) বনানী রেল ক্রসিং-এ রেল চলাচলের ফলে সৃষ্ট যানজট নিরসনের লক্ষ্যে ৮০৪মিটার দীর্ঘ রেলওয়ে ওভারপাস নির্মাণ
১০) দক্ষিণ এশিয় উপ-আঞ্চলিক অর্থনৈতিক সহযোগিতা (SASEC)-এর চিহ্নিত রুট হিসাবে নেপাল য় ভুটানকে ভারতের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের চট্টগ্রাম ও মংলা সমুদ্র বন্দর ব্যবহারের সুযোগ প্রদানের জন্য ৫৩.১০ কিলোমিটার দীর্ঘ পঞ্চগড়-তেঁতুলিয়া-বাংলাবান্ধা জাতীয় মহাসড়ক (তেঁতুলিয়া বাইপাসসহ) এবং ২৬.৩০ কিলোমিটার দীর্ঘ বোদা-দেবীগঞ্জ আঞ্চলিক মহাসড়ক (বোদাবাইপাসসহ) নির্মাণ
১১) আন্তঃজেলা সুষ্ঠু যোগাযোগ ব্যবস্থার স্বার্থে সিরাজগঞ্জ জেলার উলাপাড়া উপজেলার সোনতলা ঘাটে করতোয়া নদীর উপরে ৩৪৭.২৯৫ মিটার দীর্ঘ সোনতলা সেতু নির্মাণ
১২) টগরা-ইন্দুরকানী-বালিপাড়া-কলারন-সন্ন্যাসী সড়কের ২য় কিলোমিটারে পিরোজপুর জেলার ইন্দুরকানী নামক স্থানে বলেশ্বর নদীর উপর ৩৮৭.৩১ মিটার দীর্ঘ শহীদ শেখ ফজলুল হক মণি সেতু নির্মাণ
১৩) ঢাকা শহরের পূর্ব-পশ্চিম যোগাযোগ ব্যবস্থা স্থাপনের মাধ্যমে শহরের যানজট নিরসনে ১৭৯৩ মিটার দীর্ঘ রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমান ফ্লাইওভার (মিরপুর-এয়ারপোর্ট রোড ফ্লাইওভার) নির্মাণ
১৪) দিনাজপুর ও গাইবান্ধা জেলার মধ্যে সহজ সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা স্থাপনের নিমিত্ত সাদুল্লাপুর (মাদারগঞ্জ)-পীরগঞ্জ-নবাবগঞ্জ সড়কের ২৭তম কিলোমিটারে কাঁচদহঘাটে করতোয়া নদীর উপরে ৩০৩.৩২ মিটার দীর্ঘ ওয়াজেদ মিয়া সেতু নির্মাণ
১৫) পর্যটন নগরী কক্সবাজারের সাথে বন্দর নগরী চট্টগ্রামের সড়ক যোগাযোগ সহজ ও সংক্ষিপ্ত করার লক্ষ্যে কক্সবাজার জেলার খুরুস্কুল-চৌফলদন্ডী-ঈদগাঁও সড়কের ৯ম কিলোমিটারে চৌফলদন্ডী চ্যানেলের উপর ৩৪৭.৪৬ মিটার দীর্ঘ চৌফলদন্ডী সেতু নির্মাণ
১৬) মাদারীপুর(মোস্তফাপুর)-শরীয়তপুর-চাঁদপুর সড়কের ১১.৫৭তম কিলোমিটারে কাজিরটেক নামক স্থানে আড়িয়াল খাঁ নদীর উপর ৬৯৪.৩৬ মিটার দীর্ঘ ৭ম বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু (আচমতআলী খান)সহ আরও ৩টি সেতুর (মোট ৩১৬ মিটার দীর্ঘ টেকেরহাট সেতু, টুমচর সেতু ও আঙ্গারিয়া সেতু) নির্মাণ কাজ চলমান
১৭) পর্যটন নগরী কুয়াকাটার সাথে সারা দেশের সড়ক যোগাযোগ সহজতর করার লক্ষ্যে ঢাকা-মাওয়া-মাঙ্গা-বরিশাল-পটুয়াখালী (কুয়াকাটা) জাতীয় মহাসড়কের ১৮৯তম কিলোমিটারে পায়রা নদীর উপর ১৪৭০ মিটার দীর্ঘ পায়রা সেতুর (লেবুখালী সেতু) বাস্তবায়ন শুরু
১৮) ঢাকা-চট্টোগ্রাম মহাসড়কের ২৫তম কিলোমিটারে অবস্থিত মেঘনা সেতুর হিঞ্জ বিয়ারিং ও এক্সপানশন জয়েন্ট প্রতিস্থাপন ও ক্ষতিগ্রস্ত পিয়ারগুলোর স্কাউরিং অংশ ভরাট এবং ৪২তম কিলোমিটারে অবস্থিত গোমতী সেতুর হিঞ্জ বিয়ারিং ও এক্সপানশন জয়েন্ট প্রতিস্থাপনসহ পুনর্বাসন
১৯) টাঙ্গাইল ও মানিকগঞ্জ জেলার মধ্যে সরাসরি যোগাযোগ স্থাপনের নিমিত্ত আরিচা-ঘিওর-টাঙ্গাইল সড়কের এলাসিন নামক স্থানে ধলেশ্বরী নদীর উপর ৫১৫.১২ মিটার দীর্ঘ এলাসিন সেতু নির্মাণ
২০) জাতীয় অগ্রাধিকারপ্রাপ্ত ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক ৪-লেনে উন্নীতকরণ প্রকল্পের সড়কবাঁধ, কালভার্ট, সেতুর নির্মাণ কাজ প্রায় সমাপ্ত।২০ কিলোমিটার পিচঢালা সড়ক নির্মাণ সম্পন্ন। অবশিষ্ট কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলেছে
২১) জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ জয়দেবপুর-ময়মনসিংহ মহাসড়ক ৪-লেনে উন্নীতকরণ প্রকল্পের প্যাকেজ ৩ ও ৪ এর সড়কবাঁধ, কালভার্ট, সেতুর নির্মাণ কাজ প্রায় সমাপ্ত। ১৭ কিলোমিটার পিচঢালা সড়ক নির্মাণ সম্পন্ন। অবশিষ্ট কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলেছে। বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্যাকেজ ১ ও ২ (জয়দেবপুর চৌরাস্তা হতে নয়নপুর) এর কাজ পূর্ণ গতিতে শুরু করেছে
২২) রাজধানী ঢাকার সাথে উত্তরাঞ্চলের সুষ্ঠু যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নয়নের স্বার্থে ১৬কিলোমিটার দীর্ঘ নবীনগর-ডিইপিজেড-চন্দ্রা মহাসড়কের ৪-লেনে উন্নীতকরণ সম্পন্ন
২৩) South Asian Sub-Regional Economic Cooperation (SASEC) সড়ক সংযোগ প্রকল্পের আওতায় জয়দেবপুর হতে এলেঙ্গা পর্যন্ত ৭০ কিলোমিটার সড়ক ৪-লেনে উন্নীতকরণের বাস্তবায়ন শুরু। এ প্রকল্পের আওতায় সমপরিমাণ ধীর গতিসম্পন্ন যানবাহনের জন্য আলাদা লেন, ৫টি ফ্লাইওভার, ২৭টি সেতু ও ৬০টি কালভার্ট নির্মাণ করা হবে
২৪) ঢাকা, কুমিল্লা, সিলেট ও চট্টগ্রাম অঞ্চলের জাতীয় ও আঞ্চলিক মহাসড়কের সরু ও ক্ষতিগ্রস্ত ১১৮টি সেতু ও কালভার্ট পুনঃনির্মাণের লক্ষ্যে ইস্টার্ন বাংলাদেশ ব্রিজ ইম্প্রুভমেন্ট প্রজেক্ট (ইবিবিআইপি) বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে ২২টি সেতুর নির্মাণ কাজ সম্পন্ন। অবশিষ্টগুলোর কাজ চলছে
২৫) ঢাকা-চট্টগ্রাম জাতীয় মহাসড়কের কাঁচপুর, মেঘনা ও গোমতী সেতু দিয়ে যাতায়াতকারী ক্রমবর্ধমান যানবাহন সংখ্যা বিবেচনা করে ৪ লেন বিশিষ্ট দ্বিতীয় কাঁচপুর, দ্বিতীয় মেঘনা ও দ্বিতীয় গোমতী সেতু নির্মাণের বাস্তবায়ন কার্যক্রম শুরু
২৬) নারায়ণগঞ্জ জেলা সদরের সাথে সোনারগাঁও ও বন্দর উপজেলার সরাসরি সড়ক যোগাযোগ স্থাপনের লক্ষ্যে ১২৯০ মিটার দীর্ঘ ৩য় শীতলক্ষ্যা সেতু নির্মাণের বাস্তবায়ন কার্যক্রম শুরু
২৭) ৪৭.৮৩ কিলোমিটার দীর্ঘ গৌরনদী-আগৈলঝড়া-পয়সারহাট-কোটালীপাড়া-গোপালগঞ্জ সড়ক উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ কাজ প্রায় সমাপ্ত
২৮) সমগ্র দেশের জেলা সড়ক উন্নয়নের লক্ষ্যে গৃহীত ৮টি উন্নয়ন প্রকল্পের বিপরীতে ৩১ ডিসেম্বর ২০১২ পর্যন্ত প্রদত্ত কার্যাদেশের বিপরীতে যাবতীয় কাজ সমাপ্ত
২৯) অসমাপ্ত সেতুসমূহের কাজ সমাপ্তকরণ প্রকল্পের আওতায় মোট ৪৮টি অসমাপ্ত সেতুর (দৈর্ঘ্য ৫৮৫২.৪৫ মিটার) মধ্যে ২৪টি সেতুর নির্মাণ কাজ সমাপ্ত। অবশিষ্ট সেতুগুলোর নির্মাণ কাজ সেশ পর্যায়ে আছে
৩০) মোটরযানের এক্সেললোড নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্র পরিচালনা সংক্রান্ত নীতিমালা-২০১২ অনুযায়ী সড়ক ও সেতুর স্থায়িত্ব বৃদ্ধির লক্ষ্যে ৮টি স্থানে এক্সেললোড কন্ট্রোল স্টেশন স্থানপূর্বক পরিচালনা করা হচ্ছে। আরও ৮টি স্থানে এক্সেললোড কন্ট্রোল স্টেশন স্থাপনের কার্যক্রম চূড়ান্ত পর্যায়ে আছে
৩১) জালাম্পুর জেলার দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার বকশিগঞ্জ-সানন্দাবাড়ী-চররাজিবপুর সড়কের ২৭তম কিলোমিটারে জিঞ্জিরাম নদীর উপর ২৯৯মিটার দীর্ঘ সানন্দাবাড়ী সেতু নির্মাণ
৩২) হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হতে গাজিপুর পর্যন্ত ২০ কিলোমিটার Bus Rapid Transit (BRT) সড়ক নির্মাণ প্রকল্পের বাস্তবায়ন কাজ শুরু
৩৩) অনুন্নয়ন খাতের আওতায় বিগত পাঁচ অর্থ বছরে ৩৭৬৯.৬৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ২১৪৩.৪২ কিলোমিটার সড়ক ওভারলে, ১০২০.১২ কিলোমিটার ডিবিএসটি, ৩৬৫০.৬০ কিলোমিটার কার্পেটিংসহ সীলকোট, ৬৭৭৪.৪৯ কিলোমিটার মেরামতসহ সীলকোট, ৪১টি সেতু, ৫৩৭টি কালভার্ট পুনঃনির্মাণ

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ কর্তৃপক্ষ-এর প্রধান প্রধান কর্মকাণ্ড

১) মোটরযানের যাবতীয় কর ও ফি অনলাইন ব্যাংকিং পদ্ধতিতে আদায় কার্যক্রম ১৪ নভেম্বর ২০১০সালে শুরু করে ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৩ পর্যন্ত মোট ২হাজার ৮৩ কোটি ৪২ লক্ষ টাকা আদায় করা হয়েছে। ক্রেডিট/ডেবিট কার্ডের মাধ্যমেও ঘরে বসে মোটরযানের কর ও ফি পরিশোধ করা যায়
২) মোটরযানের রেট্রো-রিফ্লেক্টিভ নাম্বারপ্লেট, রেডিও ফ্রিক্যুয়েন্সি আইডেন্টিফিকেশন (আরএফআইডি) ট্যাগ ও ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট নভেম্বর ২০১২ মাসে প্রবর্তন করে সেপ্টেম্বর ২০১৩ পর্যন্ত ১,৭৩,৪২৩টি আরএফআইডি ট্যাগ ও রেট্রো-রিফ্লেক্টিভ নাম্বারপ্লেট গাড়িতে সংযোজন
৩) ইলেক্ট্রনিক চিপযুক্ত ডিজিটাল স্মার্ট কার্ড ড্রাইভিং লাইসেন্স অক্টোবর ২০১১ মাসে চালু করে সেপ্টেম্বর ২০১৩ পর্যন্ত মোট ৫,০২,৬২২টি লাইসেন্স ইস্যু
৪) ঢাকা ও চট্টগ্রাম মহানগরী এবং পার্শ্ববর্তী এলাকায় উন্নতমানের নতুন ট্যাক্সিক্যাব সার্ভিস চালু করার নিমিত্ত একাধিক সংস্থা/ প্রতিষ্ঠানকে অনুমতি প্রদান করা হয়েছে। একইসাথে ঢাকা মহানগরীর যাত্রীসেবার মানোয়ন্নের জন্য ১০০টি এসি মিনিবাসের রুট পারমিট প্রদানের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে
৫) দেশে পর্যাপ্ত দক্ষ ড্রাইভিং ইনস্ট্রাক্টর না থাকায় ২০১২ সালে দক্ষ ড্রাইভিং ইনস্ট্রাক্টর তৈরির বিসেশ উদ্যোগ গ্রহন করা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় ৭৩জনকে ড্রাইভিং ইনস্ট্রাক্টর লাইসেন্স ০ ৩৭টি বেসরকারি ড্রাইভিং স্কুলকে রেজিস্ট্রেশন প্রদান
৬) ২০১২সাল থেকে সরকারি ও বেসরকারি প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতায় ৬০০জন দক্ষ পেশাদার মহিলা গাড়িচালক তৈরির লক্ষ্যে ৫মাসব্যাপী আবাসিক প্রশিক্ষণ কোর্স চালু করা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় ৭৫জন মহিলা সফলতার সাথে প্রশিক্ষণ সমাপনান্তে পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স গ্রহন করেছেন

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্পোরেশন-এর প্রধান প্রধান কর্মকাণ্ড

১) বর্তমান সরকার দায়িত্ব গ্রহনের পর বিআরটিসি’র বাস বহরে বিভিন্ন ধরনের ৯৫৮টি নতুন বাস সংযোজিত হয়েছে। তন্মধ্যে পরিবেশবান্ধব ৫৩০টি সিএনজি বাস, ২৯০টি দ্বিতল বাস, ৫০টি আর্টিকুলেড বাস ও ৮৮টি একতলা এসি বাস রয়েছে
২) বাংলাদেশে সর্বপ্রথম ৫০টি আর্টিকুলেড বাস চালুর মাধ্যমে যাত্রীসেবায় নতুন মাত্রা যোগ
৩) বর্তমান সরকারের আমলে প্রতিষ্ঠানটি ১৭টি দ্রাইভিং প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের মাধ্যমে ডেন্টিং, ওয়েল্ডিং, পেইন্টিং ও ড্রাইভিং বিশয়ে ৩১,৩৩০জনকে প্রশিক্ষণ প্রদান করেছে। তন্মধ্যে মহিলা প্রশিক্ষানার্থীর সংখ্যা ৪০০জন
৪) ছাত্র-ছাত্রীদের যাতায়াতের সুবিধার্থে ঢাকা শহরে বাস সার্ভিস চালু
৫) মহিলাদের স্বাচ্ছন্দ্যে যাতায়াতের সুবিধার্থে মহিলা বাস সার্ভিস সম্প্রসারণ। বর্তমানে মহিলা বাস সার্ভিসে ২০টি বাস ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ ও গাজিপুরের বিভিন্ন রুটে চলাচল করছে
৬) ডিজিটাল বাংলাদেশ কর্মসূচী বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ২০০৯সাল থেকে বিআরটিসি বাস সার্ভিসে ই-টিকেটিং চালু হয়েছে। এ পর্যন্ত ৩টি রুটে মত ৫৮টি টিকিট কাউন্টারের মাধ্যমে এ সেবা প্রদান করা হচ্ছে
৭) বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীদের যাতায়াতের সুবিধার্থে বিআরটিসি’র বাস বহর থেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ২৫টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে ৪৭টি বাস উপহার দিয়েছেন
৮) নিয়মিত যাত্রীসেবার বাইরে বিআরটিসি ঈদ, হজ্জ, বিশ্ব ইজতেমা ও দেশের যেকোনো দুর্যোগকালীন সময়ে বিসেশ বাস সার্ভিস প্রদান করে। মুক্তিযোদ্ধা/যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বিআরটিসি’র বাসে বিনা ভাড়ায় যাতায়াতের সুবিধা সংযোজন কয়া হয়েছে। মহিলা ও প্রতিবন্ধীদের জন্য প্রতিটি বাসে পূর্বের ৯টি থেকে বাড়িয়ে ১৩টি আসন আলাদাভাবে সংরক্ষণ করা হয়
৯) অস্থিতিশীল পরিস্থিতিতে অধিকাংশ বেসরকারি পরিবহন সংস্থার যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকে। এ ধরনের ঝুঁকিপূর্ণ পরিস্থিতিতেও বিআরটিসি জনস্বার্থে যাত্রীসেবা ও পণ্য পরিবহন কার্যক্রম অব্যাহত রাখে

ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষ-এর প্রধান প্রধান কর্মকাণ্ড

১) প্রায় ২২,০০০ কোটি টাকা ব্যয়ে উত্তরা ৩য় ফেইজ হতে বাংলাদেশ ব্যাঙ্ক পর্যন্ত ২০.১০ কিলোমিটার দীর্ঘ ১৬ স্টেশন বিশিষ্ট উভয়দিকে ঘন্টায় ৬০হাজার যাত্রী পরিবহনে সক্ষম Mass Rapid Transit (MRT) Line-6 (মেট্রোরেল) বাস্তবায়নের কাজ শুরু
২) হজরত শাহ্‌জালাল (রঃ) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হতে ঝিল্মিল পর্যন্ত Bus Rapid Transit (MRT) Line-3 বাস্তবায়নের লক্ষ্যে রুট সমীক্ষা ও প্রাথমিক নকশা চূড়ান্ত করা হয়েছে। প্রকল্পের Detailed Design এর কাজ চলছে।
সড়ক বিভাগ
১) প্রথমবারের মত জাতীয় ও আঞ্চলিক মহাসড়ক ও জেলা সড়কের মেরামত ও রক্ষণাবেক্ষণ এবং উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ কার্যক্রম পরিবীক্ষনের জন্য একাধিক স্থায়ী মনিটরিং টিম গঠন করা হয়েছে। সড়ক বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী থেকে শুরু করে সহকারী সচিব/সহকারী প্রধান পর্যন্ত সকলে নিয়মিত সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের আওতাধীন সড়ক নেটওয়ার্কের কাজ মনিটরিং করছেন
২) নতুন আঙ্গিকে সড়ক বিভাগের একটি সমৃদ্ধ ওয়েবসাইট চালু করা হয়েছে জাতে পারস্পরিক তথ্য আদান প্রদানের সুযোগ রয়েছে। সড়ক নেটওয়ার্কের ক্ষতিগ্রস্ত সড়ক ও সেতুসমূহের তথ্য মাঠপর্যায় হতে ওয়েবসাইটের প্রদানের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে এবং মেরামতের পর পুনরায় সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাস ক্রয়া হয়। এতে অনলাইন মনিটরিং এর সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে
৩) ট্যাক্সিক্যাব সার্ভিস গাইড লাইন-২০১২, মোটরযানের এক্সেল লোড কেন্দ্র পরিচালনা সংক্রান্ত নীতিমালা-২০১২, ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষন আইন-২০১২, সড়ক রক্ষণাবেক্ষণ তহবিল বোর্ড আইন-২০১৩ এবং জাতীয় সমন্বিত বহুমাধ্যমভিত্তিক পরিবহন নীতিমালা-২০১৩ প্রনয়ন ও জারী করা হয়েছে

উপসংহার

সড়ক বিভাগের আওতায় ২০০৮-২০০৯ হতে ২০১২-২০১৩ অর্থবছর পর্যন্ত ৯৭টি প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়েছে। বর্তমানে ১৩৮টি প্রকল্প বাস্তবায়নাধীন আছে। এ প্রকল্পগুলো ও গৃহীত বিভভিন্ন চলমান উদ্যোগ বাস্তবায়নের মাধ্যমে প্রত্যাশিত সমৃদ্ধ ও উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মাণে সড়ক বিভাগ এবং আওতাধীন অধিদপ্তর/কর্তৃপক্ষ/সংস্থাসমুহ নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছে।

সৌজন্যেঃ সড়ক ও জনপদ বিভাগ

Live TV

আপনার জন্য প্রস্তাবিত