জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জন ও আর্থ-সামাজিক প্যারামিটারে ‘উন্নয়ন বিস্ময়’ হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছে বাংলাদেশ। যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশ ১৯৭১ সালে যখন স্বাধীনতা লাভ করে এমনকি ১৯৮০ সালেও অনেক পর্যবেক্ষক সন্দেহ প্রকাশ করেন, এ দেশটি স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে টিকে থাকতে পারবে কি-না। কিন্তু আমরা তাদের সন্দেহকে মিথ্যা প্রমাণিত করেছি।

 

আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে আগামী ১০ জুলাই ২০১৬। দেশের সর্ববৃহৎ ও সুপ্রাচীন রাজনৈতিক দলটির সম্মেলন কেবল দলটির জন্যই নয়, দেশের জন্যও অত্যন্ত গুরুত্ববহ ও তাৎপর্যপূর্ণ।

রাষ্ট্রভাষা আন্দোলন ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান

 

ভাষা আন্দোলনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের একটি বিশেষ অবদান রয়েছে। আজন্ম মাতৃভাষাপ্রেমী এই মহান নেতা ১৯৪৭ সালে ভাষা আন্দোলনের সূচনা পর্ব এবং পরবর্তী সময় আইন সভার সদস্য হিসেবে এবং রাষ্ট্রপতি হিসেবে বাংলা ভাষার মর্যাদা প্রতিষ্ঠায় নিজেকে আত্মনিয়োগ করেন। তিনি মৃত্যুর পূর্ব মুহূর্ত পর্যন্ত বাংলা ভাষার উন্নয়ন ও বিকাশে কাজ করে গেছেন এবং বাংলা ভাষা ও বাংলাভাষীদের দাবির কথা বলে গেছেন। অদ্যাবধি ভাষা- আন্দোলনে বঙ্গবন্ধুর অবদান নিয়ে প্রকাশিত প্রবন্ধ, নিবন্ধ ও বইপত্রে অনেক তথ্যকে বাদ দেয়া হয়েছে। আবার কোনো কোনো ক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধুর অবদানকে খাটো করে দেখা হয়েছে। এসব দিক বিবেচনা করে আলোচ্য প্রবন্ধে সংক্ষিপ্ত আকারে ভাষা-আন্দোলনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের যথাযথ ভূমিকা উপস্থাপন করার চেষ্টা করা হয়েছে।

১০ এপ্রিল ১৯৭১: স্বাধীনতার আনুষ্ঠানিক ঘোষনাপত্র

 

স্বাধীনতার আনুষ্ঠানিক ঘোষনাপত্র
মুজিবনগর, বাংলাদেশ
তারিখ: ১০ এপ্রিল ১৯৭১

 

দক্ষিণ এশিয়ার রাষ্ট্র বাংলাদেশ একটি নিম্ন সমভূমি বদ্বীপ, যেখানে বেশিরভাগ ভূমির উচ্চতা ৩০ ফিটের কম। এই পলিমাটি উর্বর, কিন্তু চরমভাবাপন্ন আবহাওয়ায় বন্যা ও খরার ঝুঁকির সম্মুখীন। শুধুমাত্র ২০০৯ সালে ঘূর্ণিঝড় আইলাতে ১৫ হাজার মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়।

TOP