সন্ত্রাসবাদ বিরোধী সম্মেলনে যোগ দিতে সৌদি আরব যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

 

সন্ত্রাসবাদ বিরোধী সম্মেলনে যোগ দিতে সৌদি আরব যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রাজনৈতিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ আরব-মুসলিম-যুক্তরাষ্ট্র শীর্ষ এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২১ মে।

এই সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল ট্রাম্পসহ সৌদি এ্যালায়েন্স নামে পরিচিত দায়েস (ইসলামিক ষ্টেট) বিরোধী জোটের সদস্যরা অংশ নেবেন। সরকারি সুত্র জানায়, সৌদি বাদশা সালমান বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদের আমন্ত্রণে প্রধানমন্ত্রী আগামী ২০ মে রিয়াদে যাবেন।

২০১৫ সালে দায়েস (ইসলামিক ষ্টেট) বিরোধী জোট গঠন করার পর সৌদি আরব এই প্রথমবারের মতো সদস্য রাষ্ট্রের প্রধানদের নিয়ে শীর্ষ সম্মেলন করছে।

এবারের সম্মেলনে কাতার, সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন, ওমান, কুয়েত, তিউনিশিয়া, আলজিয়ার্স, মিশর, পাকিস্তান, মালয়েশিয়াসহ অন্যান্য রাষ্ট্রের প্রধানরা অংশ নেবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা বলেন, ‘ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হবার পর নতুন বৈশ্বিক পরিবেশ শুরু হয়েছে। যেহেতু সন্ত্রাসবাদ সারা বিশ্বের সমস্যা, সেজন্য এধরনের একটি প্ল্যাটফর্ম থেকে একটি নীতি ঘোষণা আসতে পারে এই সম্মেলনে।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের জন্য এটি রাজনৈতিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ, কারণ এ শীর্ষ সম্মেলনে ২০টিরও বেশি রাষ্ট্রপ্রধান এবং সরকার প্রধান অংশ নেবেন। এ সম্মেলনে সৌদি শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক আরও গাঢ় করার সুযোগ সৃষ্টি হবে।’ এছাড়া অন্যান্য নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় করার সুযোগও রয়েছে বলে জানান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এই কর্মকর্তা।

তিনি আরও বলেন, ‘সৌদি আরব বাংলাদেশের কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আর সে কারণে সৌদি বাদশাহ’র এ আমন্ত্রণ দু’দেশের রাজনৈতিক নেতৃত্বের মধ্যে সম্পর্ক আরও ঘনিষ্ঠ করবে।’ একদিনের এ শীর্ষ সম্মেলনে নেতাদের একটি রিট্রিট হবে এবং অনুষ্ঠান শেষ হবার পরে যৌথ প্রেস বিবৃতি প্রকাশ করা হবে’ যোগ করেন এই কর্মকর্তা।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এই কর্মকর্তা আরও জানান, ২০১৫ সালে দায়েস (ইসলামিক ষ্টেট) বিরোধী জোটে বাংলাদেশ যোগদান করার সময়ে সরকার তার অবস্থান পরিস্কার করে নিয়েছে। বাংলাদেশ এ জোটে তথ্য আদান-প্রদান, লজিষ্টিক সমর্থন, গবেষণা বা অন্যান্য সহযোগিতা দিতে প্রস্তুত। কিন্তু জাতিসংঘের অনুমোদন ছাড়া কোনও ধরনের সামরিক সহযোগিতা দেবে না।

Share this
TOP