২১ ফেব্রুয়ারি ১৯৫২, রাষ্ট্রভাষা আন্দোলন ও বঙ্গবন্ধু

রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে গত ২০ ফেব্রুয়ারি ‘একুশে পদক ২০২৩’ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ভাষা আন্দোলনের জন্য বারবার কারাবরণ করলেও তার অবদান ইতিহাস থেকে মুছে ফেলার চেষ্টা করা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘ভাষা আন্দোলনে বঙ্গবন্ধুর যে অবদান, সেই অবদানটুকু কিন্তু মুছে ফেলার চেষ্টা করা হয়েছিল।&...

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু ও ভাষা আন্দোলনের প্রেক্ষাপট

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে ১৯৪৮ সালের ১১ মার্চ মাতৃভাষার অধিকার রক্ষায় ভাষা আন্দোলন শুরু হয়। 'অসমাপ্ত আত্মজীবনী' গ্রন্থে বঙ্গবন্ধু লিখেছেন, 'আমরা দেখলাম, বাংলাকে বাদ দিয়ে উর্দুকে জাতীয় ভাষা করার বড় ষড়যন্ত্র চলছে। পূর্ব পাকিস্তান মুসলিম ছাত্রলীগ এবং তমদ্দুন মজলিশ প্রতিবাদ করে এবং বাংলা ও উর্দু উভয়কেই রাষ্ট্রভাষা করার দাবি জানায়। আমরা মিটিং করে প্রত...

উনসত্তরের গণঅভ্যুত্থান ছিল গৌরবের

পাকিস্তান প্রতিষ্ঠা হওয়ার পরপরই বাঙালিরা বুঝেছিল পশ্চিম পাকিস্তানিরা বাঙালিদের স্বাধিকার প্রতিষ্ঠা করতে দেবে না। ষড়যন্ত্র করে, হামলা-মামলা দিয়ে বাঙালির অধিকার আদায়ের আন্দোলনকে তারা দমিয়ে রাখার চেষ্টা করেছিল। ভাষার জন্য সংগ্রাম, গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম, শিক্ষার জন্য সংগ্রাম, বৈষম্য অবসানের জন্য সংগ্রামের পথেই এসেছিল ১৯৬৯ সালের গণঅভ্যুত্থান। স্বাধীনতা আন্দোলনের সুদীর্ঘ পথপরিক্...

১০ই জানুয়ারি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ-এর ‘বিশাল জনসভা’

আগামীকাল ১০ জানুয়ারি সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস। বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতি পাকিস্তানের কারাগারের নির্জন প্রকোষ্ঠ থেকে মুক্তি লাভ করে ১৯৭২ সালের এই দিনে তাঁর স্বপ্নের স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশে ফিরে আসেন। ঐতিহাসিক ১০ই জানুয়ারি আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের ধারাবা...

তোমরা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করতে পারো, একজন বঙ্গবন্ধু সৃষ্টি করতে পারো না

হীরেন পণ্ডিত: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যদি না জন্মাতেন, তাহলে স্বাধীন বাংলাদেশ ও বাঙালি জাতির জন্ম কি হতো? এর একটিই মাত্র জবাব 'না'। বঙ্গবন্ধু তাঁর বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ রূপরেখা সম্পর্কে কিছু কথা বলতেন বিভিন্ন সময় প্রিয়জন ও ঘনিষ্ঠ সাংবাদিকদের। বলতেন তাঁর পরিকল্পনার কথা। অনেকে বঙ্গবন্ধুকে প্রশ্ন করতেন, আপনি ক্ষমতায় কতদিন থাকবেন। এই প্রশ্ন শুনে বঙ্গবন্ধু হেসে বলতেন, &ls...

বাংলার মানুষকে ভালোবাসার নির্মম প্রতিদান দিলো বেঈমান মোশতাক-জিয়া : সজীব ওয়াজেদ

নৃশংস কায়দায় ও ইতিহাসের বর্বরোচিত উপায়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার জন্য বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান ও আওয়ামী লীগের সাবেক নেতা খন্দকার মোশতাককে দায়ী করেছেন সজীব ওয়াজেদ জয়। বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে এবং তার তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় জাতীয় শোক দিবসে (১৫ আগস্ট) এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে এ ক...

বেদনায় ভরা দিন

শেখ হাসিনাঃ তখনও ভোরের আলো ফোটেনি। দূরের মসজিদ থেকে আজানের ধ্বনি ভেসে আসছে। এমন সময় প্রচণ্ড গোলাগুলির আওয়াজ। এ গোলাগুলির আওয়াজ ঢাকার ধানমন্ডির ৩২ নম্বর সড়কের একটি বাড়ি ঘিরে, যে বাড়িতে বসবাস করেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। এক বিঘা জমির উপর খুবই সাধারণ মানের ছোট্ট একটা বাড়ি। মধ্যবিত্ত মানুষের মতই সেখানে বসবাস করেন দেশের রা...

শোধ করতে হবে জাতির পিতার রক্তের ঋণ

শ ম রেজাউল করিম: অদম্য আত্মবিশ্বাস, আত্মমর্যাদাবোধ, মানবিক ঔদার্য, নির্মোহ আত্মসমালোচনা ও আত্মশুদ্ধির আহ্বান আর অগাধ দেশপ্রেম বঙ্গবন্ধুকে বিশ্বের অদ্বিতীয় ও অপ্রতিদ্বন্দ্বী নেতায় পরিণত করেছিল। তিনি বাঙালি জাতির জন্য অন্ধকারে একমাত্র আলোর দিশারি হয়ে উঠেছিলেন। তিনি হয়ে উঠেছিলেন শোষিতের কণ্ঠস্বর। ১৯৭২ সালের ১৮ জানুয়ারি এক সাক্ষাৎকারে ব্রিটিশ সাংবাদিক ডেভিড ফ্রস্ট বঙ্গবন্ধুকে প্র...

জুলিও কুরি পদক ; বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় বঙ্গবন্ধুর আন্তর্জাতিক স্বীকৃতির ৫০ বছর পূর্তি

মানিক লাল ঘোষঃ রাজনৈতিক জীবনে কখনো সংঘাত চাননি তিনি। কখনো সহ্য করেননি মানবতার অবমাননা। নিজের জন্য না ভেবে আমৃত্যু লড়াই সংগ্রাম করে গেছেন গণমানুষের অধিকার আদায়ের জন্য। তিন আমাদের অহংকার, বিশ্বমানবতার পরম বন্ধু জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। বিশ্বের মুক্তিকামী নিপীড়িত মেহনতী মানুষের অবিসংবাদিত নেতা ছিলেন তিনি। নিপীড়িত মানুষের মুক্তির এই দিশারী আজীবন ...

বঙ্গবন্ধুর 'জুলিও কুরি': মানবিক রাষ্ট্রব্যবস্থা অর্জনের পথে বাংলাদেশের প্রথম আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দীর্ঘ ২৩ বছরের সংগ্রামের ফসল হিসেবে বিশ্বের বুকে স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠা পায় বাংলাদেশ। এরপর আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশকে প্রতিষ্ঠিত করা এবং অভ্যন্তরীণভাবে যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশকে গড়ে তোলার জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করেন তিনি। শুধু তাই নয়, বিশ্বজুড়ে নিপীড়িত মানুষের কণ্ঠস্বরে পরিণত হন তিনি। বিশ্বের মুক্তিকামী মানুষের অনুপ্রেরণা হিসেবে ইউরোপ-আফ্রি...

আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রথম বিচার দাবি

এম নজরুল ইসলামঃ ১৫ আগস্ট ১৯৭৫। ধানমণ্ডির ৩২ নম্বরের বাসভবনে সপরিবারে নিহত হলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। এরপর এক দীর্ঘ সময় দেশে বঙ্গবন্ধুর নাম উচ্চারণ ছিল প্রায় নিষিদ্ধ। সে এক দুঃসহ দিন। জাতি ছিল স্তম্ভিত, দিকনির্দেশনাহীন। তখন সামরিকতন্ত্রের বুটে পিষ্ট গণতন্ত্র। বাকস্বাধীনতা ছিল না দেশে। দেশের বাইরেও কেউ এই হত্যাকাণ্ড নিয়ে প্রতিবাদ করার সাহস দেখাতে...

উত্তাল ২৩ মার্চঃ পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে স্বাধীনতা ঘোষণার ইঙ্গিত দেন বঙ্গবন্ধু

সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি এবং ত্রিকালদর্শী পুরুষ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তার জীবনের পুরোটাই ব্যয় করেছেন বাঙালি জাতির মুক্তির লক্ষ্য বাস্তবায়নের জন্য। প্রায় দুই যুগ ধরে বিভিন্ন অধিকার আন্দোলনের মাধ্যমে তিনি ঘুমন্ত বাঙালি জাতিকে জাগিয়ে তুলেছেন এবং ক্রমেই আন্দোলন-সংগ্রামের মাধ্যমে চূড়ান্তভাবে স্বাধীনতার জন্য প্রস্তুত করেছেন। ২৬ মার্চ সরাসরি স্বাধীনতা ঘোষণার আগে, ২৩ মার্চ ...

অগ্নিঝরা ২৩ মার্চঃ স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করেন বঙ্গবন্ধু

২৩ মার্চ, ১৯৭১। পাকিস্তান দিবসে ঢাকার প্রেসিডেন্ট ভবন ও সেনাবাহিনীর সদর দপ্তর ছাড়া বাংলাদেশে আর কোথাও পাকিস্তানের জাতীয় পতাকা ওড়েনি। অসহযোগ আন্দোলনের এই দিনে মুক্তিপাগল মানুষ সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা হাতে বঙ্গবন্ধুর বাসভবনের দিকে দৃপ্ত পদক্ষেপে ‘জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু’ স্লোগান দিয়ে এগিয়ে যায়। আওয়ামী লীগের স্বেচ্ছাসেবক বাহিনীর সদস্যদের সামর...

বঙ্গবন্ধুর জন্মের মাধ্যমে বিপ্লবী যুগের সূচনা হয়েছিল

ড. প্রণব কুমার পান্ডে ১৯২০ সালের ১৭ মার্চ দিনটি বাংলাদেশের ইতিহাসে অপরিসীম তাৎপর্য বহন করে। এই দিনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। আমাদের সবার উচিত বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্রের উৎপত্তির ইতিহাসের আলোকে বাংলাদেশের অন্যতম শ্রেষ্ঠ মুহূর্ত হিসেবে তার জন্মের গুরুত্বকে স্বীকৃতি দেওয়া। সত্যই, বঙ্...

নেতাকর্মীদের বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারণ করতে হবে

হীরেন পণ্ডিত: হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির জনক, মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯২০ সালের ১৭ মার্চ গোপালগঞ্জের পাটগাতী ইউনিয়নের টুঙ্গিপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শিশুকাল থেকেই ছিলেন জনদরদী। শিশু মুজিব দরিদ্র ও অসহায় ছাত্রদের শিক্ষা প্রদানের জন্য নিজ পরিবারসহ পাড়া প্রতিবেশীদের কাছ থেকে চাল সংগ্রহ করতেন। তিনি ...

৭ মার্চের ভাষণ ‘বিশ্ব ঐতিহ্য সম্পদ’

ড. জেবউননেছা: ১৯৪৮ সালের ভাষা আন্দোলন, ১৯৬৯ সালের গণ-আন্দোলন, ১৯৬৬ সালের ছয় দফা এবং ১৯৭০ সালে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ঐতিহাসিক বিজয়ের সাক্ষী এ দেশের জনগণ। এরপর পশ্চিম পাকিস্তানিদের ক্ষমতার মসনদে আসীন হওয়ার লিপ্সার প্রতিবাদে বাংলার মানুষকে করে তুলেছিল অদম্য সাহসী। এরই পরিপ্রেক্ষিতে সংগঠিত হয় মহান স্বাধীনতা যুদ্ধ। পশ্চিম পাকিস্তানিরা টানা নয়মাস হত্যা, ধর্ষণ, লুন্ঠন ...

১৯৭১: মার্চের শুরুতেই বঙ্গবন্ধু রাষ্ট্রীয় কাঠামোর নিয়ন্ত্রণ নেন ও জাতিকে প্রস্তুত করেন স্বাধীনতার জন্য

৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর চূড়ান্ত নির্দেশনার পর দেশের সব সরকারি-আধা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি ও কর্মচারী সমিতির পক্ষ থেকে কর্মবিরতির সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হয়। ব্রিটেন প্রবাসী ১০ হাজার বাঙালি লন্ডনে স্বাধীন বাংলার দাবিতে বিক্ষোভ করে। একদিকে পাকিস্তান সরকার অকার্যকর হয়ে যাওয়া, অন্যদিকে আরো বড় ত্যাগের প্রস্তুতি চলছিল তখন দেশজুড়ে। ৯ মার্চ, পরিস্থিতি বেগতিক দেখে ঢাকা ...

সর্বস্তরে বাংলা ভাষা ব্যবহার: অনন্য উচ্চতায় বঙ্গবন্ধু

ড. জেবউননেছা: ১৯৭২ সালে বঙ্গবন্ধু রাষ্ট্রক্ষমতা গ্রহণের প্রথম দিন থেকে সর্বস্তরে বাংলা ভাষা ব্যবহারে নীতি গ্রহণ করেন। তারপরও কেউ কেউ নানা অজুহাতে সরকারি নথি ইংরেজি ভাষায় লিপিবদ্ধ করতেন। বঙ্গবন্ধু এতে ক্ষুব্ধ হয়ে সরকারি দাফতরিক কাজে রাষ্ট্রভাষা বাংলার ব্যবহার নিশ্চিত করতে সর্বশেষ নির্দেশনা জারি করেন ১২ মার্চ, ১৯৭৫। গণভবন হতে ৭২১/১ (৪০০) নং প্রজ্ঞাপন উল্লেখ করা হয় &lsquo...

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস: বঙ্গবন্ধু থেকে শেখ হাসিনা

ড. মুহাম্মদ সামাদ: আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি এখন সারাবিশ্বে ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’ হিসেবে পালিত হচ্ছে। একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন আমাদের ভাষা শহিদ ও বাংলা ভাষার মানুষের জন্যে সত্যিই এক অহংকারের ইতিহাস। এই অহংকারের ইতিহাস বিষয়ে আগ্রহী বাংলাদেশের মানুষ ও নতুন প্রজন্মের কাছে দীর্ঘ সময় ধরে খণ্ডিততভাবে উপস্থাপন ক...

ভাষা আন্দোলনে শেখ মুজিবের তেজস্বী অবদানের ঐতিহাসিক ধারাক্রম

১৯৪৭ সালের আগস্টে অখণ্ড ভারতবর্ষ ভেঙে ভারত ও পাকিস্তান নামে দুটি রাষ্ট্র সৃষ্টির সময় পূর্ব-বাংলা পাকিস্তানের সঙ্গে যুক্ত হয়। ইংরেজদের ষড়যন্ত্রের কারণে সৃষ্ট সাম্প্রদায়িক বৈষম্য থেকে রক্ষা পেয়ে স্বাধীনভাবে বাঁচার জন্য পাকিস্তানে যোগদান যে ভয়াবহ ভুল ছিল, তা অল্প সময়ের মধ্যেই বুঝতে পারে বাঙালি জাতি। দেশভাগের পরপরই আমাদের হাজার বছরের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য এবং বাংলা ভাষাকে নিশ্চি...