ত্রিশালে আওয়ামী লীগের উদ্যোগে ২১শে আগস্ট পালিত

1080

Published on আগস্ট 21, 2021
  • Details Image

২০০৪ সালের ২১শে আগস্ট ভয়াবহ গ্রেনেড হামলার ১৭তম বার্ষিকী উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ আওয়ামী, ত্রিশাল উপজেলা শাখার উদ্যোগে যথাযথ স্বাস্থ্য বিধি মেনে দলীয় কার্যালয়ে আজ সকাল ১১টায় আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনায় নেতৃবৃন্দ ২০০৪ সালের ২১শে আগস্ট নারকীয় হত্যাকাণ্ডে নিহত শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। বেগম আইভি রহমান সহ ২৪ জন নেতাকর্মীর বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন। ২১শে আগস্টের ঘটনাপ্রবাহের কালোথাবা বাংলাদেশের রাজনীতিকে আরেকবার বিভক্ত করেছে বলে উল্লেখ করে আলোচনা করেন নেতৃবৃন্দ। বঙ্গবন্ধু কন্যার নেতৃত্বে আইনের শাসনের যে নজির স্থাপিত হয়েছে, বাংলাদেশের মানুষ তা যুগে যুগে স্মরণ করবে। নেতারা ২১শে আগস্ট বর্বর গ্রেনেড হামলা ও হত্যাকাণ্ডের পর্দার আড়ালের কুশীলবদের মুখোশ উন্মোচনের জন্য আন্তর্জাতিকভাবে তদন্ত কমিটি গঠনেরও দাবী জানান।

উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহবায়ক ও জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য এড. জিয়াউল হক সবুজের সভাপতিত্বে এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও ৯নং বালিপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন মেম্বারের কোরআন তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে শুরু হওয়া আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আলহাজ্ব নবী নেওয়াজ সরকার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ভিপি আবদুল মোতালেব, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান এবং উপজেলা ছাত্রলীগ ও যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবীর আকন্দ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান লুতফুন্নেসা বিউটি, উপজেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সাবেক ছাত্রনেতা শাখাওয়াত হোসেন তালুকদার, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা উপ-কমিটির সদস্য ও জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আপেল মাহমুদ, পৌর শাখা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ আল ফুয়াদ তরফদার ও সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম কিবরিয়া, উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি ও পৌর আওয়ামী লীগের সদস্য মেজবাহ উদ্দিন উজ্জ্বল, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক ইবরাহিম খলিল শান্ত, ১নং ধানীখোলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোর্শেদুল আলম মামুন, ২নং বইলর ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান কবীর মন্ডল, ৩নং কাঁঠাল ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক এ এফ এম মাজহারুল হক শাহজাহান মাস্টার, ৪নং কানিহারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আশরাফ আলী উজ্জ্বল, ৫নং রামপুর ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক শহিদুল আলম স্বপন, ৬নং ত্রিশাল ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি মেম্বার আবদুল ওয়াহাব সরকার, ৭নং হরিরামপুর ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল লতিফ মাস্টার, ৮নং সাখুয়া ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবীর সরকার, ৯নং বালিপাড়া ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ মেম্বার, ১১নং মোক্ষপুর ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ও ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আবুল কালাম কালুন, ১২নং আমিরাবাড়ী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ফাইজুল ইসলাম হেলাল মাস্টার এবং সকল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতিদের পক্ষে ১নং ধানীখোলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান হাবিব প্রমুখ।

অনুষ্ঠানের শেষ বক্তা আলহাজ্ব নবী নেওয়াজ সরকার বলেন, ২০০৪ সালের ২১শে আগস্ট বাংলাদেশকে নেতৃত্ব শূন্য করতে বর্বর গ্রেনেড হামলা করেছিল তৎকালীন সরকারের খুনীচক্র। আজও হামলার বিচার শেষ হয় নাই, দ্রুত বিচারিক কার্যক্রম শেষ করে আসামীদের রায় কার্যকর করার দাবি জানাই। তিনি আরও বলেন, আমি তখন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ছিলাম, আমরা জেলা-উপজেলা ও গ্রামে-গঞ্জে সেই নারকীয় হামলার প্রতিবাদে সোচ্চার হয়েছিলাম। আজকে আমাদেরকে অঙ্গীরাবাবদ্ধ হতে হবে, দেশের প্রশ্নে, মুক্তিযুদ্ধের প্রশ্নে, বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার প্রশ্নে এবং আওয়ামী লীগ ও নৌকার পক্ষে আপসহীন থাকার। অতীতের ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র ভুল-ত্রুটিগুলো যেন অপরাধের সীমানা অতিক্রম না করে সেদিকে আমাদের সবাইকে, তৃণমূলের নেতাকর্মীদেরকে সজাগ থাকতে হবে।

অনুষ্ঠানের সভাপতি এড. জিয়াউল হক সবুজ বলেন, ত্রিশাল উপজেলা আওয়ামী লীগ বরাবরই সকলরকম প্রতিবন্ধকতা অতিক্রম করে সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করে আসছে। প্রতিটি ওয়ার্ড ও ১১টি ইউনিয়নের সম্মেলন সফলভাবে আয়োজন করেছে। প্রতিটি রাজনৈতিক কর্মসূচি পালন করেছে। সংগঠন শক্তিশালী হলে বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রীর হাত শক্তিশালী হবে, নেত্রীর হাত শক্তিশালী হলেই বাংলাদেশ শক্তিশালী হবে। আমাদের সকল রাজনৈতিক প্রেরণার উৎস জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং সকল শক্তির আধার বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনা। আমাদের সম্মিলিত সকল শক্তির মোহনায় থেকে নেত্রী সারাবিশ্বের সকল অপশক্তির রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে যুদ্ধাপরাধের বিচার করছেন, ১৫ আগস্টের হত্যার বিচার করেছেন এবং ২১শে আগস্টের নারকীয় হামলা ও হত্যার বিচার হচ্ছে। ২০০৪ সালে নারকীয় গ্রেনেড হামলার এই দিবসের শিক্ষাই হলো সাহস সঞ্চয় করা এবং প্রতিবাদী হওয়া। আমরা যদি শক্তিশালী থাকি ইনশাল্লাহ কোন অপশক্তি বাংলাদেশের গাঁয়ে একটি আঁচড় দিতে পারবেনা। আমাদের কাজ আওয়ামী লীগ সভাপতি জননেত্রীর শেখ হাসিনার কথা ও কাজকে অনুসরণ করা। ২১শে আগস্ট আমাদেরকে এই শিক্ষাই দেয়।
উপজেলা আওয়ামী লীগের অন্যতম যুগ্ম-আহবায়ক মেজবাহ উদ্দিন মাস্টারের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবদুল মান্নান মাস্টার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও জেলা পরিষদের সদস্য আবদুল্লাহ আল মামুন উজ্জ্বল, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য এবং যুবলীগের সাবেক সাধ্রণ সম্পাদক ও ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক হারুনুর রশিদ হারুন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য শ্রী শ্যামল সরকার, শফিউল কবীর, নয়ন তালুকদার, আনছার উদ্দিন, এবি সিদ্দিক, সাবেক ছাত্র ও যুবনেতা আবদুল ওয়াহাব, মোস্তাফিজ তালুকদার, আবদুল মতিন, পৌর শ্রমিক লীগের আহবায়ক মাহমুদুল হাসান বাবলু, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি জাকিবুল হাসান রনি, ৩নং কাঁঠাল ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আসলাম উদ্দিন ডাক্তার, ৫নং রামপুর ইউনিয়নের সভাপতি ইদ্রিস আলী, ৬নং ত্রিশাল ইউনিয়নের সভাপতি ফজলুল হক, ৭নং হরিরামপুর ইউনিয়নের সভাপতি ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু সাঈদ, ৮নং সাখুয়া ইউনিয়নের সভাপতি আবু নোমান মোঃ আবদুল আজিজ, ১১নং মোক্ষপুর ইউনিয়নের সভাপতি আশরাফ উদ্দিন বাদশা মাস্টার, ১২নং আমিরাবাড়ী ইউনিয়নের সভাপতি আজিজুল হক মেম্বার প্রমুখ। উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম-আহবায়ক আব্দুল্লাহ আল মাকসুদ খান, মোস্তফা শরিফুল ইসলাম মুক্তা সরকার, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সভাপতি আসাদুল হক, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম হায়দার, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মনসুর, উপজেলা মৎস্যজীবী লীগের সদস্য সচিব সোহেল রানা, পৌর শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রুবেল মিয়া, নজরুল কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর মন্ডল প্রমুখ। এসময় বিভিন্ন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি/ সাবেক সাধারণ সম্পাদকবৃন্দ, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক বৃন্দ, ত্রিশাল পৌর শাখা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ, আওয়ামী লীগের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সাবেক ও বর্তমান নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Live TV

আপনার জন্য প্রস্তাবিত