আওয়ামী লীগ উন্নয়ন করে আর বিএনপি করে নির্যাতনঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

550

Published on মার্চ 12, 2023
  • Details Image

আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে দেশের মানুষকে উন্নয়ন উপহার দেয় আর বিএনপি ক্ষমতায় থাকলে নির্যাতন, দুর্নীতি হয় বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘‌বিএনপি যখন ক্ষমতায় ছিল ২০০১ সালে বিএনপি-জামায়াত তখন লুটপাট, বোমা হামলা, জঙ্গিবাদ মানুষ হত্যার মতো কাজ করে। তাদের অত্যাচারে মানুষ অতিষ্ঠ ছিল। বিএনপির ক্ষমতা থাকা মানে নির্যাতন, লুট করা। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে উন্নয়ন উপহার দেয় আর বিএনপি ক্ষমতায় থাকলে নির্যাতন করে।’

গতকাল ময়মনসিংহে আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় তিনি এ কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘‌আওয়ামী লীগ ২০০৯ সালে ক্ষমতায় আসার পর দারিদ্র্যহার ২০ ভাগে নামিয়ে এনেছি। সাক্ষরতার হার ৬৫ শতাংশে বাড়িয়েছিলাম, বিএনপি সেটিকে নামিয়ে এনেছিল।’

বিএনপিকে ইঙ্গিত করে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ‘‌লাখো শহীদের রক্তের বিনিময়ে আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি। এ স্বাধীনতা কোনো মতে ব্যর্থ হতে দেয়া যায় না। দুর্ভাগ্যের বিষয় আমাদের যারা তথাকথিত বিরোধী দল আছে, মিথ্যা বলে বলে এ স্বাধীনতার সুফল ব্যর্থ করতে চায়। তারা তা পারবে না। বাংলাদেশ আজ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে। ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত-সমৃদ্ধ স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তুলব।’

বিএনপির সমালোচনা করে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ‘‌বিএনপির কোনো এক নেতা সারা দিন মাইক লাগায়ে বসে থাকে। বাংলাদেশটাকে নাকি আমরা ধ্বংস করে দিয়েছি। ময়মনসিংহবাসী আপনাদের কাছে জিজ্ঞাসা করি, এই যে আমরা ৭৩টি প্রকল্পের উদ্বোধন এবং সব মিলিয়ে ১০৩টি প্রকল্প, এগুলো কি ধ্বংসের নমুনা? ওরা এত মিথ্যা কথা বলে কেন? আসলে মিথ্যা কথা বলা ওদের বেসাতি। আমরা নাকি কিছুই পারিনি। আজকে যে বাংলাদেশটা ডিজিটাল বাংলাদেশ হয়েছে, এ ডিজিটাল বাংলাদেশের বদৌলতে এখন দূরে বসেও দেশের মানুষ কথা বলে, রাজনীতিও করে, সবই করে।’

বিদ্যুৎ উৎপাদন বৃদ্ধি ও ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার সুফলের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘‌আমরা বিদ্যুৎ উৎপাদন বাড়িয়েছি, বিদ্যুৎ দিয়েছি বলেই তো আজ কথা বলার সুযোগ পাচ্ছে। আর যদি ডিজিটাল বাংলাদেশ না করতাম, বিদ্যুৎ না বাড়াতাম, তাহলে এত কথা মাইকে আসত কীভাবে। তো আমরা যে কিছুই করিনি, আমাদেরই করা জিনিস ব্যবহার করে আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে যাচ্ছে। এটা তাদের স্বভাব। লুটপাট, চুরি, দুর্নীতি এটাই তাদের স্বভাব।’

স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যের কথা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‌২০৪১ সালের বাংলাদেশ হবে স্মার্ট বাংলাদেশ। আমাদের জনগোষ্ঠী ডিজিটাল পদ্ধতিতে শিক্ষা গ্রহণ করবে, স্মার্ট জনগোষ্ঠী হিসেবে গড়ে ওঠবে। আমাদের অর্থনীতি হবে স্মার্ট, আমাদের কৃষি হবে স্মার্ট, আমাদের স্বাস্থ্য হবে স্মার্ট, তৃণমূল পর্যন্ত বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষের উন্নত জীবন হবে। প্রত্যেকটা গ্রামের মানুষ শহরের নাগরিক সুবিধা পাবে। বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা পেয়েছে। এ মর্যাদা আমাদের ধরে রাখতে হবে। এ মর্যাদা ধরে রেখে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে।’

আগামীতে ময়মনসিংহে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভাগ হিসেবে সংশ্লিষ্ট সব উন্নয়নকাজ করে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন আওয়ামী লীগ সভাপতি।

গতকাল দুপুর আড়াইটার দিকে জনসভাস্থলে পৌঁছেন প্রধানমন্ত্রী। বেলা ৪টার দিকে জনসভাস্থলে বক্তব্য দিতে ওঠেন শেখ হাসিনা। এর আগে ময়মনসিংহ বিভাগের ৭৩টি বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প উদ্বোধন ও ৩০টি উন্নয়ন প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী।

উদ্বোধন হওয়া উন্নয়ন প্রকল্পগুলোর মধ্যে রয়েছে—ময়মনসিংহের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারসংলগ্ন জায়গায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল, ময়মনসিংহ সদরের চর সিরতায় ৫০ শয্যাবিশিষ্ট ডা. মুশফিকুর রহমান শুভ মেমোরিয়াল ইসলামিক মিশন হাসপাতাল, ৩২টি পৌরসভায় পানি সরবরাহ ও মানববর্জ্য ব্যবস্থাপনাসহ এনভায়রনমেন্টাল স্যানিটেশন প্রকল্প, ২১টি বিদ্যালয় ও কলেজের চারতলাবিশিষ্ট একাডেমিক ভবন নির্মাণ, ময়মনসিংহ জেলায় ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজি, ময়মনসিংহ সদর উপজেলা পরিষদ নতুন হাসপাতাল নির্মাণ, জামালপুরের মাদারগঞ্জ, নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ ও খালিয়াজুরী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলায় গোরবাকুড়া-কড়ইতলী স্থলবন্দর, জেলা আইনজীবী সমিতির মূলভবন, শহীদ অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম ভবন ও ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মহিলা কলেজ উদ্বোধন।

এছাড়া প্রধানমন্ত্রী যেসব নির্মাণকাজের ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন করেছেন সেগুলোর মধ্যে রয়েছে—বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে দেশরত্ন শেখ হাসিনা হল নির্মাণ, শেখ রেহানা হল নির্মাণ, রোজী জামাল হল নির্মাণ, সরকারি আনন্দ মোহন কলেজে ৫০০ শয্যাবিশিষ্ট পাঁচ তলা ছাত্র হোস্টেল নির্মাণ, শেরপুর (কানাসাখোলা)-ভীমগঞ্জ-নারায়ণখোলা-রামভদ্রপুর-পরানগঞ্জ, ময়মনসিংহ (রহমতপুর) সড়ক উন্নয়নকাজের ভিত্তি স্থাপন।

Live TV

আপনার জন্য প্রস্তাবিত