দারিদ্র্য বিমোচনে আশ্রয়ণ প্রকল্প – শেখ হাসিনা মডেল

749

Published on আগস্ট 9, 2023
  • Details Image

যুদ্ধবিধ্বস্ত নবীন দেশে ১৯৭২ সালের ফেব্রুয়ারিতে নোয়াখালী সফরে গিয়ে আশ্রয়হীনদের প্রথম পুনর্বাসনের উদ্যোগ নেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।  জাতির পিতার কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৯৬ সালে প্রথম সরকার গঠনের পর ১৯৯৭ সালে আশ্রয়হীনদের পুনর্বাসনের জন্য সরকারি অর্থায়নে প্রথম উদ্যোগ হিসেবে গ্রহণ করেন ‘আশ্রয়ণ প্রকল্প’।  জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীতে তার কন্যা দেশের সব ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে বাসস্থানের নিশ্চয়তার ঘোষণা দেন।  সরকারি উদ্যোগে দেশের সব ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ভূমি ও গৃহ প্রদানের এ নজির পৃথিবীতে অনন্য।

আশ্রয়ণ প্রকল্প বিশ্বে একটি অনন্য প্রকল্প। কারণ পৃথিবীর আর কোনো দেশে এত বিপুল সংখ্যক ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে বাড়ি বিতরণ করা হয়নি।

আশ্রয়ণসহ অন্যান্য ঘরের মাধ্যমে এ পর্যন্ত ৪১ লাখ ৪৮ হাজার ভূমিহীন-গৃহহীন মানুষ পুনর্বাসিত হয়েছেন।  শুধু আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাধ্যমে পুনর্বাসিত হয়েছেন ২৮ লাখ মানুষ।  উপকারভোগীর সংখ্যা ও পুনর্বাসন পদ্ধতি বিবেচনায় এটি বিশ্বের বৃহত্তম সরকারি পুনর্বাসন কর্মসূচি।  দেশের সব উপজেলায় প্রায় ২৫ হাজার স্থানে এসব গৃহ নির্মিত হয়েছে।  সুবিধা প্রাপ্তদের বসতবাড়ির জন্য সারা দেশের প্রায় ২৪ হাজার একর খাসজমি ব্যবহার করা হয়েছে।

মাথাগোঁজার ঠাই একটা মানুষের জন্য অনেক বড় আত্মবিশ্বাসের কারণ। ভূমিহীন, গৃহহীন, দুর্দশাগ্রস্ত ও ছিন্নমূল পরিবারের স্বামী-স্ত্রীর যৌথ নামে যখন ভূমির ও গৃহের মালিকানা দেয়া হল তখন তা সামাজিক সম্পর্ক ও পুনর্বাসনে একধরণের ভারসাম্য নিয়ে আসে। পু নর্বাসিত পরিবারগুলো ৩ মাস (মেয়াদ) ভিজিএফ কর্মসূচি, পুনর্বাসিত পরিবারের সদস্যদের উৎপাদনমুখী ও আয়বর্ধক কর্মকাণ্ডে যুক্ত করবার জন্য ব্যবহারিক ও কারিগরি প্রশিক্ষণ প্রদান করার উদ্যোগ চালু আছে।

এক্ষেত্রে সহযোগিতার জন্য বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ড, সমবায়, মহিলা ও শিশু অধিদপ্তর, সমাজসেবা বিভাগ থেকে ক্ষুদ্র ঋণেরও ব্যবস্থা করা হয়েছে। পু নর্বাসিত পরিবারের জন্য বিনা মূল্যে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া হয় এবং প্রকল্প স্থানে নিরাপদ পানির জন্য টিউবওয়েলের সংস্থান করা হচ্ছে। পুনর্বাসিত পরিবারের জন্য কমিউনিটি সেন্টার, প্রার্থনাঘর ও কবরস্থানসহ পুকুর খনন ও অভ্যন্তরীণ যোগাযোগের জন্য রাস্তা নির্মাণ করে দেয়া হয়েছে,যা এখনো চালু আছে।

এককথায় এক আশ্রয়ণ প্রকল্প প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বাংলাদেশকে গৃহহীনদের মাঝে নিশ্চিন্তে সকল কাজ শেষে একটা নিরাপদ আশ্রয়, ঘরের পেছনে কৃষিকাজ করে নিজেদের সবজি, মাছ, মাংসের চাহিদাসহ, অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হবার প্রবল সাহস যুগিয়েছে।  যা দেশের অর্থনীতিতে বাড়তি মাত্রা যোগ করেছে।  কমে আসছে হতদরিদ্রদের সংখ্যা, কমছে দারিদ্র্যের হার।

সারাবিশ্বে এই আশ্রয়ণ প্রকল্প দারিদ্র্য বিমোচনের একটি দৃষ্টান্ত।  অন্য দেশের কোন পরামর্শকের পরামর্শে নয়, এই উদ্যোগ বাংলাদেশের ও জননেত্রী শেখ হাসিনার।  

বাংলাদেশ আপনার কাছে চির কৃতজ্ঞ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

Live TV

আপনার জন্য প্রস্তাবিত