বঙ্গবন্ধু বিশ্বের নিপীড়িত মানুষের অধিকার আদায়ের জনক

9227

Published on আগস্ট 9, 2018
  • Details Image

হাশেম খানঃ

বাংলাদেশ পৃথিবীতে এসেছে চিরকালীন স্থায়িত্ব নিয়ে। যে মানুষটি এ দেশের স্বাধীনতার জন্য নেতৃত্ব দিয়েছেন— তিনি শুধু এই বাংলাদেশের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষের অধিকারের জন্যই রাজনীতি করেননি। তাঁর রাজনীতি সারা বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষের জন্য প্রতিষ্ঠা করে গেছেন।

৭ই মার্চ ১৯৭১-এ যে ভাষণ তিনি দিয়েছিলেন— আজ সারাবিশ্ব সেই ভাষণকে গুরুত্ব দিয়েছে— সম্মানিত করেছে। কারণ বঙ্গবন্ধু তাঁর রাজনৈতিক মেধা ও শক্তিকে প্রমাণ করেছেন। ‘... প্রত্যেক ঘরে ঘরে দুর্গ গড়ে তোল। তোমাদের যা কিছু আছে তাই নিয়ে শত্রুর মোকাবেলা করতে হবে... মনে রাখবা রক্ত যখন দিয়েছি রক্ত আরো দেব, এ দেশের মানুষকে মুক্ত করে ছাড়বো ইনশাল্লাহ। এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম।’

৭ই মার্চের ভাষণের এই অংশটুকু এত বেশি শক্তিশালী যে, পাকিস্তানি হানাদার সেনাবাহিনীর অনেক আধুনিক অস্ত্র-শস্ত্রকে তুচ্ছ করে দিয়েছিল। এ কয়েকটি বাক্যের আবেদন ছিল আমাদের ৯ মাসের সশস্ত্র স্বাধীনতা যুদ্ধের প্রেরণা ও শক্তি। যা মেশিনগান, কামান, মর্টার, স্টেনগান থেকেও শক্তিশালী। আজকে সারা বিশ্বে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা পর্যালোচনা করে দেখেছে, এ ভাষণ স্বাধীনতা যুদ্ধে জয়ী হতে আজ পর্যন্ত শ্রেষ্ঠ এবং শক্তিশালী শব্দচয়ন।

তাই আমি মনে করি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শুধু সাড়ে সাত কোটি বাঙালির মুক্তির সংগ্রাম ও স্বাধীনতা যুদ্ধের নেতা নন। তিনি সারা বিশ্বের নিপীড়িত মানুষের অধিকার আদায়ের স্বাধীনতা সংগ্রামের জনক। জয় বাংলা। জয় বঙ্গবন্ধু।

লেখক:চিত্রশিল্পী

সৌজন্যেঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Live TV

আপনার জন্য প্রস্তাবিত